গল্প : ভাবি যখন বউ (পর্ব: ১৬তম)

738

রাকিব এ দৃশ্য দেখে নিজেকে সামলাতে পারছে না । রাকিব জোরে একটা চিৎকার দিয়ে বলতে লাগলো_

কাজল….. তুই এখানে কি করছিস..
আজ তোকে আমি মেরে ফেলবো…
বদমাশ মাইয়া…তোর সাহস তো কম না। দ্বারা তোরে ঠিক করতেছি…

এই বলে রাকিব একটা লাঠি নিয়ে কাজলকে মারতে আসে। যখনই কাজলের ওপর ছুড়ে মারবে তখনই পিছন থেকে রাতুল এসে লাঠি ধরে ফেলল আর বলতে লাগলো:
থাম ভাই থাম মারিস না…

রাকিব: ও একটু সময়ই তোমাদের ভালোবাসা হয়ে গিয়েছে ??
বাহ বাহ কাজল । তুই আসলে অনেক পারিস তুই কি চাস ?? সেটা কি আমাকে বল । হয়তো আমি জানি না যে তুই কার সাথে সম্পর্ক রাখতে চাস। আর কয়জনের সাথে সম্পর্ক করতে চাস।। আমাকে বল আমি শুনতে চাই তোর কথা??
তুই কয়টা ছেলের সাথে সংসার করতে পারলে তুই খুশি হবে রে আমাকে বল। আমাকে বল তুই কয়টা ছেলের সাথে তুই তমসা করেছিস । তোর মতো নষ্টা মেয়ে মনে হয় এই পৃথিবীতে আর একটাও নেই।

তখন কাজল কিছু বলছে না। এক দৌড়ে ঘরে চলে যায়।। এদিকে রাকিব ও রাতুলকে কিছু বলল না কেননা সে তার বড় ভাই সেই সম্মানে তার ভাইকে সে কিছু বলল না। সেও চলে গেল তার বাড়ি থেকে।।

বাড়ি গিয়ে রাকিব চুপচাপ রয়েছে।কিছু বলছে না। এত হুঙ্কার এত চিল্লাচিল্লি কোথায় গেল ??

রাকিব যেন কোনো উপায় ছাড়া হয়ে রুমে বসে আছে । সে কাজলকে কিছু বলছে না। কিছুক্ষণ পরে রাকিব উঠে কাজলের কাছে যায় । গিয়ে বলতেছে আসলে আমি বিষয়টা বুঝতে পারি নি। আমি মনে হয় একটু বেশী বলে ফেলেছি ।
কাজল: না ঠিক আছে ।।
রাকিব: কোথাও ঠিক নেই ।। সরি কাজল ।
কাজল: আরে বললাম তো ঠিক আছে ।।
রাকিব: প্লিজ কাজল । বলছি তো আমি অনেক বেশী বলে ফেলেছিলাম। তার জন্য আমি খুব দুঃখিত ।
কাজল: হয়েছে তো তোমার সরি সরি।
এখন বন্ধ কর । সব দুশ আমারি।
আমার জন্যই আজ তোমাদের ভাই ভাইয়ে ঝগড়া। এ সব কিছুর মূল আমি তাই সব দুশ আমার ।।
রাকিব: না এটা এক দম না । তোমার কোনো দুশ নেই।

কাজল একটু মুসকি হেসে বললো।
তুমি একদম ভুল বলছো তুমি বলেছো না !! আমি খারাপ আমি নষ্টা একটা মেয়ে। হুম তোমার কথা এক বারে সত্য ।
আমি এমন একটা মেয়ে যে কিনা নিজের স্বামী থাকা স্বথেও অন্য জনের সাথে রঙ্গ করে সন্তান জন্ম দিলাম। সত্যি আমি খুব খারাপ ।

আমি আর খারাপ কাজ করতে চায় না। আমি তোমাদের থেকে অনেক দূরে চলে যাব।তবেই আমি এ থেকে মুক্তি পাবো। নয়তো আল্লাহ আমাকে ক্ষমা করবে না।

রাকিব: কাজল তুমি এ কি বলতেছো??
তুমি চলে গেলে আমার কি হবে। আমাদের সন্তানের কি হবে। প্লিজ তুমি এসব আর মুখেও নিও না।

কাজল: না রাকিব । আমাকে ভুলের মাশুল দিতেই হবে।।
রাকিব: আরে থামো তো । দেখো আমি তোমাকে কি কখনো এসব নিয়ে কোনো কথা বলেছি। আজ শুধু মাথাটা একটু গরম হয়ে গেছিল। আসলে আমার সামনে তোমাকে যদি কেউ টাস করে তখন আমার খুব খারাপ লাগে মাথাটা পুরো গরম হয়ে যায়। আমি যে তোমাকে ভালবাসি। তোমাকে ছাড়া আমি কি করে থাকবো বলো।

কাজল: আমিও তোমাকে অনেক ভালবাসি রাকিব । I love you rakib.
রাকিব: I love you too kajol.

দুই দিন পরেই রাতুল আসলো রাকিবের বাড়ীতে। এসেই হইচয় করতে লাগলো…

চলবে….
সাথে থাকুন ধন্যবাদ

গল্প : ভাবি যখন বউ
পর্ব: ১৬তম পর্ব
লেখক : S M Rony Chowdhury

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here