গল্প : ভাবি যখন বউ ( পর্ব: ১২ তম )

1043

যে ঘরে কাজল বড় ভাইয়ের বউ হিসেবে এসেছিল একসময় আর ওই ঘরেই এখন ছোট ভাইয়ের বউ হিসেবে এসেছে ।
কি অবাক কান্ড

রাকিব বারবার বলছে তোমার কি হয়েছে কাজল? কথা বলছো না কেন?? আজ তো আমাদের সুখের দিন !!!আজ তো আমাদের বাসুর রাত। কথা বলো প্লিজ…

কাজল কোন কথা বলছে না শুধু এক পলকে নিচ দিকে তাকিয়ে আছে।
এদিকে রাকিব একের পর এক প্রশ্ন করে যাচ্ছে কিন্তু তার সাথে কথা বলছে না। কাজল একদম চুপি মেরে বসে রয়েছে সাজানো সেই রুমটাতে।।

তখনই হাউমাউ করে কাজল কেঁদে উঠলো আর বলতে লাগল আমার কপালে কি এটাই ছিল হায়রে কপাল কি কপাল নিয়ে জন্মিলাম আমি।। তখন রাকিব বলতে লাগল কেন তোমার কি হয়েছে আজ তো তোমার সুখের দিন তোমার ইচ্ছা পূরণ হয়েছে।।আমারো ইচ্ছা পূরণ হয়েছে।তোমার পেটে যার বাচ্চা সেই তো আজ তোমার স্বামী হয়েছে। তাহলে কেন এত কষ্ট তোমার আমাকে একটু খুলে বলো তো কাজল।।

কাজল: আজ তো তুমি বেজায় খুশি তাই তো??
রাকিব : হ্যাঁ আজ তো আমি বেজায় খুশি আমি পৃথিবীর সবথেকে খুশি আজ। কেননা আজ আমি আমার মনের মানুষটাকে আপন করে পেয়েছি। একদম কাছে পেয়েছি যাকে হাজার সাধনার পরেও হাজার কষ্ট হলেও আজ তারই সাথে আমার মিলন হবে।।আজ মনে হয় আমার থেকে আর কেউ সুখী নয়।।

কাজাল : বাহ রাকিব বাহ। এই তোমার ভালোবাসা ছি ছি… । আমার যে আজ ভাবতে অবাক লাগতাছে। কি করে তুমি তোমার নিজের ভাইকে ভুলে যেতে পারো। নিজের ভালোবাসার কাছে নিজের ভাইকে তুচ্ছ মনে করলে। নিজের ভাই পাগল হয়েছে বিধায় তাকে তুমি দূরে ঠেলে দিয়েছো। কোথায় আছে, কি করছে, কোন খোঁজখবরই তুমি রাখনি। এটা কোন ধরনের কাজ তুমি করলা রাকিব ।আমাকে একটু বলো। সে কি তোমার সৎ ভাই ছিল। কেন তুমি তার সাথে এমন করলে সেও তো একটা মানুষ ছিল আর সেও তো তোমাদের ফ্যামিলির জন্য অনেক কিছু করেছে।তোমাকে লেখাপড়া করিয়ে বড়ো করিয়েছে আরও তোমাদের পরিবারের সকল চাহিদা পূরণ করেছে নিজে কষ্ট করে উপার্জন করে।

আর তোমরাই তারই কোন খবর নিচ্ছ না। কোথায় গেছে !কোথায় আছে! কেমন মানুষ তোমরা রাকিব ? হা ??? আমার যে আজ ঘেন্না হচ্ছে তোমাকে। তোমার সাথে কথা বলতে আমার কোন ইচ্ছাই হচ্ছে না আজ তুমি বললা না আজ থেকে তুমি সবথেকে খুশি কিন্তু আজ থেকে আমি সবথেকে দুঃখী।

আজ তুমি একটা সাধারন একটা মেয়ের ভালোবাসার জন্য তুমি তোমার ভাইকে তুমি তোমার পরিবারের কে পর করে দিতে পারলে তুমি যদি আমার থেকে ভালো কাউকে পেতে তাহলে তো হয়তো তুমি আমাকে পর করে দেবে তখন।।

রাকিব শুধু এই কথাগুলো শুনছে কোন উত্তর দেওয়ার সুযোগ নেই কেননা সে যে অপরাধী। কাজলের কথাগুলো একদম ঠিক ঠিক। সেজন্যই রাকিব কিছু বলতে পারতেছে না । সে অপরাধ করেছে অনেক বড় ভুল করেছে। যে বাড়িতে তার জন্য ছোটবেলা থেকে কষ্ট করে তাকে পড়ালেখা করিয়েছেন মানুষ করিয়াছে আজ সেই ভাই কে কোথায় হারিয়ে ফেলেছে । কোথায় ছেড়ে দিয়েছে সে নিজেও জানে না।

ফ্যামিলি পরিচালনা করতে মানসিক চাপে একটু মানসিক সমস্যায় পড়ে যায় সেজন্যই একটু পাগলামি ভাব করে তাই বলে তাকে কি দূরে ফেলে দিতে হবে।
তাকে কি চিকিৎসা করার প্রয়োজন নেই রাকিবের। কেমন ভাই সে। ছোট হয়ে বড় ভাইয়ের দুঃখ কষ্টটা সে একদমই বুঝে নাই অথচ সারাটি জীবন তাকে কুলে পিটে লালন-পালন করে বড় করিয়েছে।।

এইসব কথাগুলোই রাকিবের মাথায় এখন খেলছে। এতক্ষণ কথাগুলো তার মাথায় ছিল না এইমাত্র কাজল তার মাথায় এই কথাগুলো ঢুকিয়ে দেয় তখনই তার হুঁশ হয়। যে সে এটা কি করলো এটা তো খুবই জঘন্য কাজ।। নিজের ভালোবাসার কাছে নিজের ভাইকে পর করে দিল।। নিজের ভাই কোথায় আছে, কি করছে ,কোন খবরই সে রাখলো না।। স্বার্থপরের মত বড় ভাইয়ের বউটাকে নিজেই বিয়ে করে বসে আছে।। শুধু নিজের স্বার্থ চিন্তা করে।।

রাকিবের মাথায় এইসব কথাগুলো এখন কুড়ে কুড়ে খাচ্ছে। সে কি করবে এখন উপায় পাচ্ছে না। তখনই সে কাজলকে কে বলল..
কাজল আমি তো অনেক বড় ভুল করেছি।আমি তো এসব বুঝি নি। যে এটা কত বড় জঘন্য রকমের ভুল আমার মাথায় এটা একদমই ছিল না । কাজল বিশ্বাস করো। আমি সত্যি ভুলে গিয়েছিলাম এই ব্যাপারটা। তুমি কিন্তু একদম খুলে দিলে এখন আমি কি করবো তুমি বল তাড়াতাড়ি বলো আমাকে কি করতে হবে।যে ভাই আমার জন্য এত কিছু করেছে আমি তার জন্য কিছুই করতে পারলাম না বরং তাকে শুধু কষ্টই দিয়ে গেলাম আমি কি নিষ্ঠুর ।

কাজল : রাকিব এখনো সময় আছে দ্রুত করে তোমার ভাইকে তুমি খুঁজে বের করো। আর তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করো তবেই তুমি এটা থেকে মুক্তি পেতে পারো।
না হয় তুমি সারাজীবন কষ্টই পেয়ে যাবে।

চলবে….
সাথে থাকুন ধন্যবাদ

গল্প : ভাবি যখন বউ
পর্ব: ১২ তম পর্ব
লেখক : S M Rony Chowdhury

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here