গল্প : ভাবি যখন বউ (১১তম পর্ব)

912

কিন্তু কাজলের বাচ্চাটির বাবা কে । কাকে সে বাবা বলে ডাকবে??

রাকিবের বিয়ের সব রকমেন আয়োজন করা হচ্ছে।অন্যদিকে কাজলকে এব্যাপারে কোন কিছু জানানো হলো না। কাজলের প্রায় নয় মাস চলতেছে। আর ঐদিকে রাতুলের কোন খবর নেই সে পাগলের মত বাড়ি থেকে বের হয়ে গিয়েছিল কোথায় থাকে কি করে কোন খবর নেই।।

রাকিব কিছুতেই বিয়ে করতে চাচ্ছে না। কিন্তু শুধুমাত্র তার মায়ের অনুরোধের জন্য এই বিয়েটা সে করতে যাচ্ছে ।কেননা তার মা তাকে বলল যদি সে বিয়েটা না করে তাহলে তার মা আত্মহত্যা করবে তার নিজের চোখের সামনে।। সন্তান হয়ে মায়ের মৃত্যু দেখবে কেমন ছেলে। সে জন্যই আবির এই বিয়েতে রাজি হয়ে যায়।

তার কাছে যে কিছুই করার নেই। একদিকে তার ভাবী কাজাল মানে তার আগের প্রেমিকা যার সাথে সুখ দুঃখ আনন্দ সবকিছু বিলিয়ে দিয়েছে এমনকি সবকিছুই করা হয়েছে ওর সাথে।। এই অ’বৈধ সম্পর্ক কাজলের সাথে করাটা রাকিবের একদম ঠিক হয়নি সেজন্য রাকিব এখন কি করবে সেই চিন্তায় আছে।।

অবশেষে বিয়ের দিন আসলো । সবকিছু ঠিকঠাক তবে জামাইবাবু রাকিবের মনটা খুব খারাপ। সে বারবার মনে করছে কাজলের কথা । কাজলকে সে কখনোই বলতে পারছে না।। কাজলের আনন্দ বেদনায় কষ্টে সুখে দুখে সব কিছুতে রাকিব মিশে গিয়েছে। কিন্তু তবুও এই দুঃখ-কষ্ট কে বাদ দিয়ে মায়ের দিকে চিন্তা করে রাকিব এই পথে এগিয়ে যাচ্ছে।।

ঠিক তখনই রাকিবের কল্পনায় কাজলের আগমন । কল্পনায় কাজল এসে বলল:

বলো আমায় তুমি এতটা কষ্ট দিতে পারলে রাকিব । আমাকে তুমি এতটা আশ্বাস দিয়ে এতটা কনফিডেন্স দিয়ে তুমি আমাকে টিসু পেপারের মতো ফেলে দিয়ে যাচ্ছ বিয়ে করতে। তুমি তো আমাকে সত্যিই ভালবাসতে তাই না। তোমার ভালবাসায় কোন খাত ছিল না তাই তো। তুমি অফুরন্ত ভালবেসে ছিলে আমায় তাইতো।। আজ সবকিছুই কেমন হাস্যকর লাগতেছে।
অনেক ভাবে আমাকে বিশ্বাস করিয়ে ছিলে যে তুমি আমাকে ভালোবাসো কিন্তু না তুমি আমাকে একদমই ভালবাসনি। তুমি আমার সাথে শুধুই খেলা করেছ। শুধুই নস্টামি করেছ আজ আমি বুঝতে পেরেছি।। যাও বিয়ে করতে যাও…

যখনই রাকিব বাড়ি থেকে বের হবে মানে বরযাত্রীরা সবাই একসাথে বের হবে তখনই রাকিব সেন্সলেস হয়ে যায়।। পড়ে যায় রাস্তায় সবাই হৈ হল্লা শুরু করে দিলো। জামাইয়ের কি হয়েছে কি হয়েছে করে …. রাকিবকে হসপিটালে নেওয়া হয় তারপর জানা গেল রাকিবের খুবই খারাপ অবস্থা।। ডাক্তার আরো বললো রাকির নাকি মানসিক চাপের কারণে এই অবস্থা হয়েছে।

বাংলাদেশের চিকিৎসা নেই।।
সেজন্য দ্রুত মালয়েশিয়া নিতে হবে
দ্রুত করে রাকিবকে নেয়া হচ্ছে মালয়েশিয়ায় ।রাকিবের অবস্থা খুবই খারাপ বলতে গেলে খুবই খারাপ।।

পুরো একমাস থাকা অবস্থায় দেশে ফিরল রাকিব রাকিব।। দেশে ফেরার পরই শুনতে পেল কাজলের ছেলে হয়েছে।
এ খবর শুনে খুব খুশি হলো ।
এদিকে কাজলকে রাকিব দের বাড়িতে নিয়ে আসার জন্য লোক পাঠানো হয়েছে।

কিন্তু দুঃখের সংবাদ হচ্ছে কাজলকে ওরা নাকি দেবে না। কেননা ওখানে কাজলের কোন অধিকার নেই কারণ কাজলের স্বামী নেই। কাজলের স্বামী নিরুদ্দেশ হয়ে গিয়েছে। তাহলে ওখানে গিয়ে কাজল কি করবে ????

সেজন্য কাজলকে ওরা দেবে না।। কিন্তু রাকিবের মা কাজলের ছেলে হওয়া কথাটা শুনে খুব খুশি হয়েছিল কিন্তু এখন এই খবরটা শুনে হিমশিম খেয়ে যায়।।

এখন চিন্তায় পড়ে যান তিনি। ওদের পরিবারের একমাত্র ছেলে জন্ম হয়েছে অথচ তাকে আনতে পারতেছেন না।

তখন রাকিবের মা যায় কাজল দের বাড়িতে কাজলকে আনার জন্য।
কিন্তু কাজলের পরিবার কাজলকে এইভাবে দিতে চাচ্ছে না। যেখানে কাজলের কোন থাকার বর্ষায় নেই। সেখানে কাজল গিয়ে কি করবে।।
সেজন্যই তারা ভাবছে যে কাজলকে অন্য জায়গায় বিয়ে দেবে আর কাজলের সন্তানকে ওরা যেন নিয়ে
যায়।

তখন এইসব কথা শুনে রাকিবের মা চমকে যায় এই ছোট্ট একটা বাচ্চাকে নিয়ে কি করবে ।। কে রাখবে? কি পালন করবে এই বাচ্চাটাকে?
রাকিবের মা তো এখন বুডো় হয়ে গেছে উনার দ্বারা সম্ভব নয় বাচ্চাকে লালন পালন করা।

তখন রাকিবের মা চিন্তা করলেন যাক তাহলে রাকিবকে বিয়ে করিয়ে দেই কাজলের সাথে তবেই সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে ।। মনে মনে এই কথাটা ভেবে তিনি ওই বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসলেন।।

কিন্তু তিনি মনে মনে ভাবছেন রাকিব যদি এ বিষয়টা নিয়ে রাজি না হয় তখন , তখন কি হবে তবে যাই হোক আগে তিনি ভাবলেন বলে দেখি রাজি হতেও তো পারে।

বাসায় এসে রাকিবকে বললেন এ ব্যাপারে । রাকিব কিছু বলছে না মনে মনে হাসছে।। রাকিবের আম্মু বুঝে গেছেন সে রাজি আছে।
আর দেরি করলেন না । এই সম্বন্ধ সামনের দিকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য কাজলদের বাড়িতে গেলেন এবং প্রস্তাব প্রত্যাখান করলেন।।

কাজলের পরিবার রাজি হয়ে গেল কাজলকে রাকিবের সঙ্গে বিয়ে দিতে।।
হয়তো তারাও এটাও চেয়েছিল যাতে করে রাকিব হয় কাজলের জামাই।।

অবশেষে দুমদামে সানাই বাজিয়ে
কাজলকে ঘরে তুলল বিয়ে করে।।

অবশেষে ভাবি হয়ে গেল রাকিবের বউ গল্পের সার্থকতা পূরণ হয়েছে কেননা গল্পের নাম ছিল ভাবি যখন বউ।।

কিন্তু আবার ঠান্ডা অবাক কান্ড কাজল কোন কথা বলছে না রাকিব এর সঙ্গে।। আজ তাদের বাসর রাত কিন্তু কোন কথা বলছে না । কেন কি হয়েছে??

রাকিব বারবার বলছে তোমার কি হয়েছে কাজল? কথা বলছো না কেন?? আজ তো আমাদের সুখের দিন !!!
কথা বলো প্লিজ…

চলবে….
সাথে থাকুন ধন্যবাদ

গল্প : ভাবি যখন বউ
পর্ব:১১তম পর্ব

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here