একজন ব্যর্থ প্রমিকের একটি চিঠি।।

প্রিয়া আমি ডুবে গেছি তোমার মাঝে। কিচ্ছু নেই আমার মাঝে। না ভাড়া দেওয়ার জন্য কোন টাকা আছে, না টাকাটা মনে কোন ইচ্ছা আছে, প্রিয়া আমি পুরো বদলে গেছি ।আমার পুরো দুনিয়াটা কেমন অন্ধকার হয়ে আসছে। কিচ্ছু নেই আমার মাঝে ।আমি শুধু তোমার আমি কে খুঁজে পাই আমার মাঝে সারাটা দিন সারাটা রাতই।

কোথায় তুমি হারিয়ে গেলে একটিবারের জন্য কি আমাকে মনে পড়ে না প্রিয়া। মনে পড়ে সেদিনের কথা আমরা বসে ছিলাম পুকুর পাড়ে। তুমি আমায় বলেছিলে কখনো আমায় ছেড়ে চলে যাবে না ।দুজন দুজনের হাত ধরে সারাটি জীবন বেঁচে থাকবে জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত । তুমি আরও বলেছিলে এভাবে আমাদের সাতজনম কেটে যাবে তারপরও আমাদের হাত কেউ ছাড়াতে পারবে না।।

ও প্রিয়া কিন্তু কোথায় ?? কোথায় আমি তো তার কোন অস্তিত্বই খুঁজে পাচ্ছি না । তুমি নেই আমি তো আছি কিন্তু মরার মতো , এখন তুমি নেই আমি শেষ।আমার পুরা দুনিয়াটা অন্ধকারে কালো মেঘে ঢেকে যাচ্ছে প্রিয়া ।। তুমি বলেছিলে আমাদের সম্পর্ক জনম জনম কেটে যাবে কিন্তু আমাদের সম্পর্ক এক জনমেই শেষ হয়ে যাবে ভাবতেই পারছি না ।

আমি যে আর আমার মাঝে আমাকে খুঁজে পাই না প্রিয়া।না ভাড়া দেওয়ার জন্য টাকা আছে, না টাকা কামানোর জন্য চাকরি আছে, না চাকরি খোঁজার কোন শক্তি আছে, না ভালো একটা মন আছে সব শেষ হয়ে গেছে প্রিয়া ।একদম মরে গেছি ।একদম জ্যান্ত লাশ হয়ে গেছি দম থাকিতে মৃত।

প্রিয়া কোথাই যাব আমি নাকি ট্রেনের চাকায় মাথা দেবো বলো অবন্তী বলো ।
কি করে কমবে এই কষ্টটা এই যন্ত্রণাটা। কি করে দূর হবে আমার বুক থেকে ।
কি করে এই হাহাকার হৃদয় আবার পরিপূর্ণ হয়ে উঠবে ।

প্রিয়া তুমি একটা কাজ করো তুমি এসে আমায় জলে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দাও ।না হয় গলা টিপে মেরে দাও আমায় ।
তুমি এমন গা দিয়েছো না সেটা কোনদিনই আর ঠিক হবে না ।।

প্রিয়া কি করে তুমি ভুলে যেতে পারো আমাকে। কি করে তুমি পারো আমাকে ছাড়া থাকতে। কি করে তুমি পারো আমাকে ছাড়া তুমি প্রতি রাতে ঘুমাতে ।কি করে তুমি পারো আমার চোখে চোখ না রেখে আরেকজনের চোখে চোখ রাখতে ।
কি করে তুমি পারো এইসব করতে আমার সাথে….।।।

প্রিয়া আমার যে বিশ্বাসই হয় না যে তুমি আমাকে ভুলে গিয়েছো। আমার মনে হয় তুমি আমার পাশেই আছো কিন্তু পাঁশটা ভালো করে খুঁজে দেখি কোথাও তুমি নেই।।

জানো তুমি ছিলে সেই ঘরটা ঘর ছিল। তোমাকে ছাড়া মনে হচ্ছে যে ওখানে শুধু ইট আর পাথর রয়েছে। যে ঘরে তুমি আর আমি একসঙ্গে থাকার স্বপ্ন দেখেছিলাম সেই ঘরটা তো আর নেই তাহলে কোথায় যাব কোন ঘরে আমার জায়গা আছে বলো প্রিয়া।

প্রিয়া তুমি বলো না শুধু বলো একবার
বলো কোথায় যাব কার কাছে গেলে একটু সুখ পাব শান্তি পাব তুমি বলো না একবার বল।

প্রিয়া তুমি যদি একবার বলো যে সব কিছু মিথ্যা ছিল একটা খারাপ স্বপ্নের মত। যেটা ঘটেছে আমাদের জীবনে সেইটা সম্পূণ মিথ্যাে ছিল। শুধু একবার বলো না আমি সেটাই চুপচাপ মেনে নেব।

তোমার মনে আছে আমরা কিভাবে বাঝনা তলায় মেলায় যেতাম আর একে অপরের হাত ধরে ফুচকা খাইতাম, তারপর চুপিচুপি যেতাম পুকুরের ধারে। কতই না ভালই লাগত ।।। মনে আছে কি নেই প্রিয়া ????

তুমি আমায় বলেছিলে ঘাসফুল হবে আমি বললাম হুম হব আমি তোমার জন্যই তো সব হতে রাজি ।।। হলাম তোমার ঘাসফুল আর তুমি হাটি হাটি পায়ে ছুটে চললা গোলাপের নেশায়।।
কেন তুমি আমাকে ঘাসফুল বানিয়েছো আর কেনই বা তুমি আমাকে গোলাপ বানানো নি। আমি তোমার জীবনে শুধুই ঘাসফুল হওয়ার জন্য এসেছিলাম?? যে ঘাসফুল ভেয়ে হাটি হাটি পায়ে হেঁটে যেতে….।। আর ছোটে চলতা গোলাপের নেশা হে গো প্রিয়া??

ও প্রিয়া আমরা দুজন তো একসাথেই এসেছিলাম এই শহরে। এক বছর হচ্ছে আমার মনে হচ্ছে যেন গত জন্মের ব্যাপার। তুমি নেই পুরো জীবনটা অন্ধকারে কালো মেঘে ঘনিয়ে যাচ্ছে।

আমি কি এমন দোষ করেছি যার জন্য তুমি আমাকে ছেড়ে এভাবে চলে গেছো। আমার ভুলটা তুমি একবার বলো আমি সেই ভুলটা আর সারাজীবনও করবো না ।

শেষে শুধু একটা কথাই বলবো আমি পারবো না তোমাকে ভুলে যেতে । আমি পারবো না তোমার সাথে দিনগুলো কাটানো গত জন্মের ভাবার।
তুমি যদি পারো তাহলে আমার চোখের দিকে তাকিয়ে বলো ।তুমি দেখো! আমার চোখে চোখ রেখে বলো যে আমায় তুমি পুরোপুরি ভুলে গিয়েছো !! আমি জানি তুমি পারবে না আমার চোখে চোখ রেখে তুমি এই মিথ্যা কথাটা বলতে
।।

Leave a Comment